কক্সবাজারের কমিউনিটি রেডিও “রেডিও সৈকত” পথ চলার দুইবছর পূর্ণ করে ৩য় বছরে পদার্পণ করেছে।

0
41
এ উপলক্ষে শনিবার (১ জুন) বিকালে কক্সবাজার প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) বিভীষণ কান্তি দাস, কোস্ট ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক রেজাউল করিম চৌধুরী, পরিচালক (পার্টনারশিপ ও উন্নয়ন যোগাযোগ) বরকত উল্লাহ মারুফ, কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. মুজিবুল ইসলাম, বাংলাদেশ বেতার কক্সবাজার কেন্দ্রের সহকারী পরিচালক (অনুষ্ঠান) কাজী মো. নুরুল করিম, অগ্রযাত্রার প্রধান নির্বাহী নীলিমা আকতার চৌধুরী, কক্সবাজার সিটি কলেজের বাংলা বিভাগের প্রধান শারমিন ছিদ্দিকা লিমা, ইউএনএইচসিআর-এর উর্ধতন কর্মকর্তা জামাল উদ্দিন।
“কিশোরীর কন্ঠে বাজে উপকূলের অগ্রযাত্রা” এই স্লোগান সামনে রেখে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, কোস্ট ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা ও রেডিও সৈকতের কলাকুশলীগণ উপস্থিত ছিলেন।অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন রেডিও সৈকতের প্রযোজক আনিকা। রেডিওর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন স্টেশন ম্যানেজার গুলফান আরা হুরি।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক বিভীষণ কান্তি দাস রেডিও সৈকতকে  অভিনন্দন জানিয়ে ও উপস্থিত সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, স্থানীয় কিশোরীদের দ্বারা পরিচালিত এই রেডিও এই অঞ্চলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এবং তার জন্য সকল নারী কর্মীদের স্যালুট দেওয়া উচিত। কিলোওয়াট  বৃদ্ধির দাবির বিষয়ে তিনি বলেন, বিষয়টি বিবেচনার দাবি রাখে।
মুজিবুল ইসলাম রেডিও সৈকতের দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রেডিওর সাথে সংশ্লিষ্ট সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। তিনি রেডিও সৈকতের অনুষ্ঠানের বৈচিত্র্যষ নিয়ে ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং আগামীর জন্য শুভ কামনা জানান।
অনুষ্ঠানের শুরুতে কোস্ট ফাউন্ডেশনের পরিচালক বরকতুল্লাহ মারুফ বক্তব্যে জানান, যেখানে বাণিজ্যিক রেডিওর ট্রান্সমিটারের সক্ষমতা ১০কিলোওয়াট সেখানে কমিউনিটি রেডিওর জন্য অনুমোদন আছে মাত্র ২৫০ ওয়াট এর, যা দিয়ে দূরবর্তী প্রান্তিক জনগোষ্ঠী ও দ্বীপাঞ্চলে তথ্য প্রচার করা যায় না। কমিউনিটি রেডিওর ট্রান্সমিটারের সক্ষমতা বাড়ানো এখন সময়ের দাবি।
নীলিমা আকতার চৌধুরী বলেন, রেডিও সৈকত পরিচালনা করে একদল কিশোরী। তাদের সম্মান জানানোর জন্য অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়া। সকলের সহযোগিতা পেলে রেডিও সৈকত অনেকদূর এগিয়ে যাবে। তিনি আরো বলেন, তৃণমূল পর্যায়ে যে নারীরা  রয়েছে তারা যেন রেডিও অনুষ্ঠান শুনতে পায় সেই পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।
রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, সরকারের পলিসি মেনে কোস্ট ফাউন্ডেশন দুটি রেডিওর অনুমোদন নেয়। রেডিও সৈকত পরিচালনা করেন কক্সবাজারের স্থানীয় কিশোরীরা। এই রেডিও স্টেশন শুধু রেডিও নয়, এটি একটি মাল্টিমিডিয়া সেন্টার ফর মাল্টি জেনারেশন। এখানে তরুণীরা কাজ করে দক্ষ হবে ও সমাজ পরিবর্তনে কাজ করবে। এছাড়াও উপস্থিত ব্যক্তিবর্গ রেডিও সৈকতকে শুভকামনা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠান শেষে দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে র্যা লি প্রেস ক্লাব মিলনায়তন থেকে বের হয়ে শহিদ মিনার প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।
এ সময় সহকারী পরিচালক ও আঞ্চলিক টিম লিডার জাহাঙ্গীর আলমসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।
Spread the love

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here