গর্ভধারিণী মায়ের বুকে বেড়ে উঠলেও আমাদের প্রকৃত স্থান মূলত প্রকৃতির মার কাছে

0
87

পরিবেশ দূষণ রোধে গড়ে উঠা সংঘঠন green environment movement এর সদস্য এস এম আকাশ চৌধরীর কাছ থেকে জানতে পারি প্রতিবছর তারা স্কুল কলেজ সহ বিভিন্ন জায়গায় লক্ষাধিক গাছ লাগান এবং বনাঞ্চলের ভারসাম্য রক্ষায় কাজ করে।
তিনি জানান আমরা যে গাছটাই লাগাই না কেন সেটা শুধু লাগাতে হবে তাই লাগিয়ে দিলাম তাই না হোক সেটা যেন সুন্দরভাবে বেড়ে উঠুক ,আমাদের সহায়ক হোক, অক্সিজেন দিতে পারে, দিনশেষে একটা কাঠ হিসেবে গড়ে উঠতে পারে যা আমাদের জ্বালানির কাজে আসবে সেই চেষ্টা করতে হবে। যা লাগাই না কেন তার সঠিক পরিচর্চা করতে হবে।
যাদের সুন্দর মেন্টালিটি আছে তারা ১৫ বছর হোক বা ৮০ বছর তারা সবাই তরুণ। তিনি জানান বনাঞ্চল না থাকলে পরিবেশ তার নিজস্ব ভারসাম্য হারাবে। তরুণ প্রজন্মের উদ্দেশ্য বলেন বাড়ির আঙ্গিনা বা ছাদ যেখানে পারি যেন গাছ লাগাই। যাতে তা পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় কাজে আসে।
জন্ম থেকে গর্ভধারিণী মায়ের বুকে বেড়ে উঠলেও আমাদের প্রকৃত স্থান মূলত প্রকৃতির মার কাছে। কিন্তু এই প্রকৃতি মায়ের প্রতি আমাদের যত অবহেলা , উদাসীনতা। আমরা ভুলে যাই আমাদের চারপাশের পরিবেশের বাকশক্তি না থাকলেও তারও যতেœর প্রয়োজন, প্রয়োজন পরিচর্চার। পরিচর্চা না থাকলে পরিবেশ দূষণ দিন দিন বাড়বে।
অক্সিজেন ছাড়া তিন মিনিটের বেশি মানুষ বাচঁতে পারে। বেচেঁ থাকার জন্য আমাদের প্রতিদিন বিশুদ্ধ অক্সিজেন প্রয়োজন ৫৫০ লিটার। যা আমরা পেয়ে থাকি প্রকৃতি থেকে। তাই পরিবেশ রক্ষায় আমাদের নিজেদের কাজ করে যেতে হবে।
সীমিত প্রাকৃতিক সম্পদকে পরিবেশ বান্ধব উপায়ে উপযোক্ত ব্যবহার নিশ্চিত করতে বর্তমান তরুণ সমাজ এগিয়ে আসবে এই প্রত্যাশা রেডিও সৈকতের।

Spread the love

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here