সমুদ্রে নিষেধাজ্ঞায় জেলেদের খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়-মৎস্য কর্মকর্তা

0
150

মানুষ তার জন্মলগ্ন থেকেই জীবন ধারনের তাগিদে জীবিকার অন্বেষন করছে। জীবিকা অন্বেষন এক পর্যায়ে জনসংখ্যা বৃদ্ধি, ভূমির অসমবন্ঠন, দারিদ্য ও কর্ম সংস্থানের অভাবে বিপুল সংখ্যাক মানুষ মৎস্যজীবি পেশায় এসেছেন। মৎস্যজীবিরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে, রোদ বৃষ্টি, ঝড়-তুফান আবহাওয়া উপেক্ষা করে নদীতে মাছ ধরে দেশের বিপুলসংখ্যক মানুষের আমিষ জোগান দেয়। সেই মৎস্যজীবিদের জীবন কাঁটে বঞ্চনা ও বৈষম্যের শিকার হয়ে। কিন্তু তাদের মধ্যে যারা নদীতে মাছ ধরেন, তাদের অবস্থা আরও শোচনীয়। জন্মের অভ্যর্থনা এখানে গম্ভীর, নিরৎসব, বিষন্ন। তাদের জীবন হাসিকান্না, শোষন বঞ্চনা ও সংগ্রামের চিত্র অঙ্কিত হয়েছে। মৎস্যজীবিদের জীবন ও জীবিকা নিয়ে আরো জানার জন্য রেডিও সৈকতের পক্ষ থেকে কথা বলা হয় কক্সবাজার সদর উপজেলার মৎস্য কর্মকর্তা জনাব তারাপদ চৌহান এর সাথে। তিনি বলেন, বর্তমানে কক্সবাজার জেলায় ৯ হাজার ৬শত ২০ জন জেলে নিবন্ধিত রয়েছে। তিনি বলেন, দূর্যোগ কালীন সময় ও মৎস্যজীবীদের জন্য সচেতনতা মূলক বার্তাসহ মৎস্যজীবীদের বিভিন্ন সরকারি সহায়তা দেওয়া হয় । এছাড়াও সমুদ্রে মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা চলাকালীন সময়েও মৎস্যজীবীদের সরকারিভাবে চালের সহায়তা দেওয়া হয় বলে তিনি জানিয়েছেন ।

Spread the love

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here